কক্সবাজার সেন্টমার্টিন চলাচলে কর্ণফুলী জাহাজের জেলা প্রশাসনের অনুমতি নেই

মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন, কক্সবাজার।
গত মঙ্গলবার কক্সবাজার জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন জানিয়েছেন কক্সবাজার সেন্টমার্টিনে চলমান কর্ণফুলি এক্সপ্রেস জাহাজটির জেলা প্রশাসনের অনুমতি নেই। স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া এই জাহাজ নৌ-পথে চলমান রয়েছে তবে ‘কর্ণফুলী’এক্সপ্রেস জাহাজটি কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে সাগরপথে চলাচলের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে শুধুমাত্র আবেদন করেছে বলে জানান ১১ ফ্রেরুয়ারী সকালে অনুষ্ঠিত কক্সবাজার জেলা আইনশৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় উপস্থিত কয়েকজন সদস্য এ বিষয়ে জানতে চাইলে সভার সভাপতি জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ কামাল হোসেন এ তথ্য জানান। সভায় অন্য ক’জন সদস্য পর্যটকবাহী বিলাসবহুল জাহাজ কর্ণফুলীর যাত্রীরা পর্যটক সেজে কৌশলে মাদক আনতে পারে, তাই জাহাজটিতে কড়া গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর আবেদন জানান। তার জবাবে উপস্থিত পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) বলেন, ৬/৭ শ’ পর্যটককে প্রতিদিন জাহাজে উঠানোর সময় একবার চেক করা ও নামতে আরেকবার চেক করা খুবই দুরূহ কাজ। এতে পর্যটকেরা বিব্রত হবে। তারপরও সুক্ষ গোয়েন্দা নজরদারি শুরু থেকেই রয়েছে। ‘কর্ণফুলী’এক্সপ্রেস নামক পর্যটকবাহী জাহাজটি সকাল ৭ টায় কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দ্যেশে কক্সবাজার শহরের উত্তর নুনিয়াছটা বিআইডাবিøওটিএ ঘাট থেকে ছেড়ে আবার সেই ঘাটে রাত্রে ১০ টার পর কক্সবাজার পৌঁছায়। তাই সভায় জাহাজটিতে আরো নজরদারির ব্যবস্থা করার দাবি জানানো হয়।
জেলা প্রশাসনের অনুমতি নেই কথাটি স্বীকার করে কর্ণফুলী জাহাজের কক্সবাজারের দায়িত্বরত বাহাদুর হোসাইন জানান আমরা নৌ মন্ত্রনালয় থেকে শুরু করে সব জায়গা থেকে অনুমতি নিয়ে জাহাজ চালু করেছি, তবে স্থানীয় প্রশাসন তথা জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর অনুমতির জন্য দরখাস্ত দিয়েছি অচিরেই আমরা তা পেয়ে যাবো।
।সাধারণ জনগন মনে করছে কর্ণফুলী জাহাজে প্রতিদিন যাতায়াত করছে এথেকে ধারনা করা হচ্ছে যেহেতু সেন্টমার্টিন মায়ানমার সীমন্ত ঘেসা এ্কটি ইউনিয়ন আর ওখান থেকে প্রতিনিয়ত মাদক ইয়াবা আসছে যদি এই জাহাজে কোন ধরনে চেক না করা হয় তা হলে ইয়াবা কারবারিরা নিরাপদ ট্রানজেকশন হিসাবে কর্ণফুলি জাহাজকে বেচেঁ নিবে বলে মনে করছেন।
গত ৩০ জানুয়ারি নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি ও একই মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আবদুস সালাম, কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক ও বিশিষ্টজনেরা ‘কর্ণফুলী’ নামক পর্যটকবাহী বিলাসবহুল জাহাজটি উদ্বোধন করেন।

Comments are closed.