আপডেটঃ
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে বরখাস্ত করছেন ট্রাম্পঈদগাঁহতে আওয়ামীলীগের জনসভাঃ এমপি কমলের লাখ জনতার শোডাউনচট্টগ্রামে জলসা মার্কেটের ছাদে ২ কিশোরী ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৬যশোরের বেনাপোলে সীমান্তে দুই নাইজেরিয়ান নাগরিক আটক“বিএনপি ক্ষমতার লোভে অন্ধ হয়ে গেছে”ঈদগাঁহর জনসভায় রামু থেকে এমপি কমলের নেতৃত্বে যোগ দেবে লক্ষাধিক জনতাসৈকতে অনুষ্ঠিত হলো জাতীয় উন্নয়ন মেলা কনসার্টকর্ণফুলীতে মা সমাবেশশেখ হাসিনার গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তরুণ তালিকায় যারানজিব আমার রাজনৈতিক বাগানের প্রথম ফুটন্ত ফুল- মেয়র মুজিবুর রহমাননাইক্ষ্যংছ‌ড়ি‌তে ডাকাত আনোয়ার বলি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তগণমাধ্যমের জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে’শহীদ জাফর মাল্টিডিসিপ্লিনারী একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনসরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনজাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ছবির প্রদর্শনী চলছে আমেরিকায়

354_me.jpg

আজিম নিহাদ :

রোহিঙ্গা শিশুরা মিয়ানমারে ফেলে এসেছে ঘুরে বেড়ানো খেলার মাঠ, বাড়ির পাশের নদী, ফুল-ফলের বাগান তথা ছবির মত সুন্দর।
মিয়ানমারে ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করে এলেও এসব সুন্দর দৃশ্য মনে গেঁথে রয়েছে তাদের। হাতের কাছে রং আর কাগজ পেয়ে রংতুলিতে ফুটিয়ে তুলেছে তাদের সেই সুন্দর গ্রামের প্রতিচ্ছবি। ছবি দেখে স্পষ্টই বুঝা যায়, শিশুরা তাদের সেই সুন্দর গ্রামে ফিরে যেতে চায়।
ছবি আঁকার জন্য তাদেরকে নির্দিষ্ট কোন প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়নি। বাস্তবে যেসব  দেখেছে সেগুলোই এঁকেছে। রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা এসব ছবি বিক্রির জন্য পাঠানো হয়েছে আমেরিকায়। চলতি মাসের শুরুতে আমেরিকার চেলসিতে মাসব্যাপী প্রদর্শনী শুরু হয়। সেখানেই বিক্রি হচ্ছে ছবি গুলো। আর যা আয় হবে সেগুলো সরাসরি পৌছে যাবে রোহিঙ্গা শিশুদের কাছে।
ব্যতিক্রম এই উদ্যোগটি নিয়েছে কক্সবাজার আর্ট ক্লাব। ২০১৭ সালের ২৫ আগষ্ট রোহিঙ্গা ঢলের পর থেকে ছবি এঁকে রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদ, রোহিঙ্গাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন এবং বিশ^ব্যাপী জনমত গড়ে তুলতে ‘মানবতার জন্য শিল্প’ শীর্ষক ক্যাম্প শুরু করে সংগঠনটির সদস্যরা।
সংগঠনটির সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা বলেন, রোহিঙ্গা শিশুদের দিয়ে ছবি আঁকানোর জন্য কুতুপালং ও বালুখালী আশ্রয় শিবিরে তিন দফায় আর্ট ক্যাম্প করা হয়। এই ক্যাম্পে শিশুরা নিজেদের ইচ্ছেমত ছবি আঁকে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি উঠে এসেছে সেখানকার (মিয়ানমারের) তাদের গ্রামের দৃশ্যের ছবি। তিন দফায় ক্যাম্পে প্রায় ১ হাজার ছবি আঁকে রোহিঙ্গা শিশুরা।
তিনি বলেন, গত ২০ জুন বিশ^ শরণার্থী দিবস উপলক্ষে রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ছবি নিয়ে ঢাকা মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রদর্শনীতে তোলা ৩০০ ছবি বিক্রির জন্য ঢাকার গ্যালারী টোয়েন্টিওয়ান ও আমেরিকার রগু ফাউন্ডেশন নামে দুটি সংগঠন সংগ্রহ করে নিয়ে যায়। ১ সেপ্টেম্বও থেকে এই ছবি গুলো নিয়ে আমেরিকার চেলসিতে মাসব্যাপী প্রদর্শনী শুরু হয়। সেখানে ছবি বিক্রির টাকা গুলো সরাসরি যেসব রোহিঙ্গা শিশু ছবি এঁকেছে, তাদের জন্য পাঠানো হবে। একই সাথে আমেরিকার জনগণও বুঝতে সক্ষম হবে যে, রোহিঙ্গা শিশুরা কি চায়।
জানা গেছে, মানবতার জন্য শিল্প শীর্ষক ক্যাম্পে গত এক বছরে সারাদেশের ১৩টি চারুকলা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭ শতাধিক শিল্পী এবং ২ দুই শতাধিক রোহিঙ্গা শিশু প্রায় ৪ হাজার ছবি আঁকে। এছাড়াও বাংলাদেশে এসে ক্যাম্পে যোগ দিয়ে আমেরিকা, কানাডা, ফ্রান্স, অষ্ট্রেলিয়া, ভারত, মিয়ানমার ও নেপালের ৫০ জনেরও বেশি বিদেশি শিল্পী ছবি এঁকেছে।
এরমধ্যে রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ২ শতাধিক এবং অন্যান্য শিল্পীদের আঁকা ৮ শতাধিক ছবি নিয়ে রোহিঙ্গা আগমনের এক বছর এক বছর উপলক্ষে গত ২৫ ও ২৬ আগষ্ট দুইদিন ব্যাপী চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে সংগঠনটি।
কক্সবাজার আর্ট ক্লাবের সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা বলেন, আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে প্রধান উদ্দেশ্যে হলো মিয়ানমারের শিল্পীদের নিয়ে প্রতিবাদ গড়ে তোলা। ইতোমধ্যে মিয়ানমারের শিল্পীদের সাড়া মিলেছে। তারা (মিয়ানমারের চিত্র শিল্পী) সেখানে ছবি এঁকে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

Top