আপডেটঃ
হাইকোর্টে হাজির হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন কক্সবাজারের ডিসি-এসপিউখিয়ার কলেজছাত্রী হত্যাকারী সন্ত্রাসী কবিরের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধারমাওলানা আনোয়ারের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম’ বিজ্ঞাপনের বিষয়ে অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখা হবে: ইসি সচিবনির্বাচন পিছিয়েছেন। আর নয়। একদিনও নয়, একঘণ্টাও নয়।নৌকার পক্ষে কাজ করার নির্দেশ, বিদ্রোহী হলে স্থায়ী বহিষ্কার: শেখ হাসিনাজয়ের পথ এগিয়ে রাখল স্পিনাররানির্বাচন বানচালের চক্রান্তে বিএনপি : কাদেরনির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠকে আ’লীগভোটগ্রহণ পেছানোর দাবি বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে ইসি: ড. কামালবেনাপোল সীমান্তে ১২ টি স্বর্ণের বার সহ পাচারকারী আটকচট্টগ্রামে মাঠে ২৭ ম্যাজিস্ট্রেটযশোরের শার্শায় বিদেশী পিস্তল সহ আটক-১বেনাপোলে ইয়াবাসহ নারী আটকঅবশেষে পুরস্কার ঘোষিত আসামি গ্রেফতার

রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ছবির প্রদর্শনী চলছে আমেরিকায়

354_me.jpg

আজিম নিহাদ :

রোহিঙ্গা শিশুরা মিয়ানমারে ফেলে এসেছে ঘুরে বেড়ানো খেলার মাঠ, বাড়ির পাশের নদী, ফুল-ফলের বাগান তথা ছবির মত সুন্দর।
মিয়ানমারে ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করে এলেও এসব সুন্দর দৃশ্য মনে গেঁথে রয়েছে তাদের। হাতের কাছে রং আর কাগজ পেয়ে রংতুলিতে ফুটিয়ে তুলেছে তাদের সেই সুন্দর গ্রামের প্রতিচ্ছবি। ছবি দেখে স্পষ্টই বুঝা যায়, শিশুরা তাদের সেই সুন্দর গ্রামে ফিরে যেতে চায়।
ছবি আঁকার জন্য তাদেরকে নির্দিষ্ট কোন প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়নি। বাস্তবে যেসব  দেখেছে সেগুলোই এঁকেছে। রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা এসব ছবি বিক্রির জন্য পাঠানো হয়েছে আমেরিকায়। চলতি মাসের শুরুতে আমেরিকার চেলসিতে মাসব্যাপী প্রদর্শনী শুরু হয়। সেখানেই বিক্রি হচ্ছে ছবি গুলো। আর যা আয় হবে সেগুলো সরাসরি পৌছে যাবে রোহিঙ্গা শিশুদের কাছে।
ব্যতিক্রম এই উদ্যোগটি নিয়েছে কক্সবাজার আর্ট ক্লাব। ২০১৭ সালের ২৫ আগষ্ট রোহিঙ্গা ঢলের পর থেকে ছবি এঁকে রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদ, রোহিঙ্গাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন এবং বিশ^ব্যাপী জনমত গড়ে তুলতে ‘মানবতার জন্য শিল্প’ শীর্ষক ক্যাম্প শুরু করে সংগঠনটির সদস্যরা।
সংগঠনটির সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা বলেন, রোহিঙ্গা শিশুদের দিয়ে ছবি আঁকানোর জন্য কুতুপালং ও বালুখালী আশ্রয় শিবিরে তিন দফায় আর্ট ক্যাম্প করা হয়। এই ক্যাম্পে শিশুরা নিজেদের ইচ্ছেমত ছবি আঁকে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি উঠে এসেছে সেখানকার (মিয়ানমারের) তাদের গ্রামের দৃশ্যের ছবি। তিন দফায় ক্যাম্পে প্রায় ১ হাজার ছবি আঁকে রোহিঙ্গা শিশুরা।
তিনি বলেন, গত ২০ জুন বিশ^ শরণার্থী দিবস উপলক্ষে রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ছবি নিয়ে ঢাকা মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রদর্শনীতে তোলা ৩০০ ছবি বিক্রির জন্য ঢাকার গ্যালারী টোয়েন্টিওয়ান ও আমেরিকার রগু ফাউন্ডেশন নামে দুটি সংগঠন সংগ্রহ করে নিয়ে যায়। ১ সেপ্টেম্বও থেকে এই ছবি গুলো নিয়ে আমেরিকার চেলসিতে মাসব্যাপী প্রদর্শনী শুরু হয়। সেখানে ছবি বিক্রির টাকা গুলো সরাসরি যেসব রোহিঙ্গা শিশু ছবি এঁকেছে, তাদের জন্য পাঠানো হবে। একই সাথে আমেরিকার জনগণও বুঝতে সক্ষম হবে যে, রোহিঙ্গা শিশুরা কি চায়।
জানা গেছে, মানবতার জন্য শিল্প শীর্ষক ক্যাম্পে গত এক বছরে সারাদেশের ১৩টি চারুকলা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭ শতাধিক শিল্পী এবং ২ দুই শতাধিক রোহিঙ্গা শিশু প্রায় ৪ হাজার ছবি আঁকে। এছাড়াও বাংলাদেশে এসে ক্যাম্পে যোগ দিয়ে আমেরিকা, কানাডা, ফ্রান্স, অষ্ট্রেলিয়া, ভারত, মিয়ানমার ও নেপালের ৫০ জনেরও বেশি বিদেশি শিল্পী ছবি এঁকেছে।
এরমধ্যে রোহিঙ্গা শিশুদের আঁকা ২ শতাধিক এবং অন্যান্য শিল্পীদের আঁকা ৮ শতাধিক ছবি নিয়ে রোহিঙ্গা আগমনের এক বছর এক বছর উপলক্ষে গত ২৫ ও ২৬ আগষ্ট দুইদিন ব্যাপী চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে সংগঠনটি।
কক্সবাজার আর্ট ক্লাবের সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা বলেন, আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে প্রধান উদ্দেশ্যে হলো মিয়ানমারের শিল্পীদের নিয়ে প্রতিবাদ গড়ে তোলা। ইতোমধ্যে মিয়ানমারের শিল্পীদের সাড়া মিলেছে। তারা (মিয়ানমারের চিত্র শিল্পী) সেখানে ছবি এঁকে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

Top