আপডেটঃ
কক্সবাজারের মানবতার শ্রেষ্ট মানব সেবক ড়াক্তার রেজাউল করিম মনছুরযেখানে সেখানে কান পরিষ্কার করবেন নাসাকিবের না থাকাটা আমার জন্য বাড়তি দায়িত্ব : মিরাজআন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘আইইই ডে’ পালিতইতিহাসে ১ম বার মার্কিন সেনার বৃহত্তম কমান্ডের দায়িত্বে নারী!৩৭ বছর পর ইরানের মেয়েরা ফুটবল মাঠেআবার নির্বাসনে তনুশ্রী?সৌদি বাদশাহর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠককর্ণফুলীতে মামুন হত্যার আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভকুমারীপূজা উপলক্ষে হিলি সীমান্তে বিজিবিকে মিষ্টি উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছে ভারতী বিএসএফবেনাপোল সীমান্তে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিলসহ ২ পাচারকারী আটকসব সদস্য রাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করলে শান্তি নিশ্চিত হয় : স্পিকারনির্বাচন কবে, জানতে চাইলেন মার্কিন কূটনীতিকসভাপতি কমল এমপি, সাধারণ সম্পাদক হুদা বঙ্গবন্ধু পরিষদ কক্সবাজার জেলা কমিটি অনুমোদনযশোরে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ হবে সকল যুদ্ধের জননী’

Iran.jpeg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ ইরানের সঙ্গে শান্তি স্থাপিত হলে তা হবে সকল শান্তির জননী এবং ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ বাঁধলে তা হবে সকল যুদ্ধের জননী। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে রোববার (২২ জুলাই) এ কথা বলেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

ইরানের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম প্রেসটিভি জানিয়েছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইরানি দূতাবাস প্রধানদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে এ কথা বলেন প্রেসিডেন্ট।

এর মাধ্যমে তিনি ইরানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইসরাঈল বা অন্য কোন দেশের হামলা করার ভয়াবহ পরিণতি সম্পর্কে আগাম হুঁশিয়ার করে দেন।

রুহানি বলেন, ইরানের বিরুদ্ধের হুমকি ঠিক বিপরীত প্রভাব ফেলবে (ইরানও হুমকি দেবে)।

তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্টকে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, মিস্টার ট্রাম্প, সিংহের লেজ নিয়ে খেলবেন না।

‘হুমকি ইরানি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করবে এবং আমরা অবশ্যই আমেরিকাকে পুনরায় পরাজিত করবো’ বলেন রুহানি।

ইরান ও মার্কিন ‍যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে সবচেয়ে উত্তেজনাপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

২০১৮ সালের ৮ মে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে করা ওবামা প্রশাসনের শান্তি চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করেন।

ট্রাম্পের আস্থাভাজন নিরাপত্তা উপদেষ্ঠা জন বোল্টন একাধিকবার গণমাধ্যমের সামনে ইরানের বর্তমান ইসলামপন্থী সরকার পরিবর্তনের কথা বলেন।

এর পরপরই ইরানের নেতারা পাল্টা  উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় করতে থাকেন।

মার্কিন প্রশাসন এর মধ্যে ইরানের তেল বাণিজ্য থেকে লভ্যাংশ শূন্যে নিয়ে আসার পরিকল্পনার কথা জানা।

জবাবে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মী নেতা শনিবার বলেন, ইরান আক্রান্ত হলে এবং ইরানের তেলের উপর অবরোধ আরোপ করা হলে এই অঞ্চলে আর কোন দেশ হরমুজ প্রণালী দিয়ে তেল বিক্রি করতে পারবেনা।

রোববার (২২ জুলাই) রুহানী সেই উত্তপ্ত অবস্থায় সরাসরি যুদ্ধ পরবর্তী অবস্থার ইঙ্গিত দিলেন।

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ঘাঁটি ও ইসরাঈলের অবস্থান ইরানী ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় বলে ইরানী জেনারেলগণ বক্তব্য দিয়ে থাকেন।

Top