আপডেটঃ
চট্টগ্রাম বোর্ডে এইচএসসি পরীক্ষায় মেয়েরা এগিয়েচট্টগ্রাম বোর্ডে এইচএসসির পাসের হার ৬২ দশমিক ৭৩ শতাংশকর্ণফুলী আওয়ামীলীগ,সাংগঠনিক দুর্বলতায় ভোগছেযে দানে চরম শত্রু থেকে বন্ধু হলেন প্রিয়নবিআসছে শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ!ঈদে সাত পর্বের নাটকে ঊর্মিলাবাংলাদেশের যে কোনো সংকটে পাশে থাকবে ভারতহৃদয় জেতা ক্রোয়েশিয়া আজ ট্রফিও জিতুক!কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বহুতল অফিস ভবনের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধনচট্টগ্রাম পানির ট্যাংক থেকে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধারআওয়ামীলীগের প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত, ৮৫টি সংসদীয় আসনে আসছে নতুন মুখবহিষ্কৃত এএসআই ইয়াবা সহ ডিবির হাতে গ্রেফতার:চট্টগ্রাম শাহ আমানত মার্কেটে আগুনক্ষমতা চিরস্থায়ী করার পাঁয়তারা করছে সরকার: ফখরুলভিসির বাসভবনে হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

হজের প্রস্তুতি গ্রহণে আবশ্যক করণীয় ও বর্জনীয়

Haj.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর মহাসম্মিলন স্থল পূণ্যভূমি মক্কা। প্রতি বছর জিলহজ মাসের ৯ তারিখ আরাফার ময়দানে অনুষ্ঠিত হয় এ মহাসম্মিলন। বৈধ অর্থের মালিকগণের ওপর এ মহাসম্মিলন স্থলে উপস্থিত হওয়া ফরজ। জাবালে রহমতের পাদদেশে ঐতিহাসিক আরাফাতের ময়দানে এ মহাসম্মিলন অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ব মুসলিম আল্লাহর দরবারর হাজিরা জানাতে এক সুরে গেয়ে ওঠবে হজের তালবিয়া। যেখানে রয়েছে মাওলার গুণগান; শান ও মান। মুসলিম উম্মাহ এক সুরে উচ্চ আওয়াজে জানা দেবে-

‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক;
লাব্বাইকা লা শারিকা লাকা লাব্বাইক;
ইন্নাল হামদা ওয়ান নি’মাতা লাকা ওয়াল মুলক;
লা শারিকা লাক।’

হজের এ মহা পবিত্র কর্ম সম্পাদনে রওয়ানা হওয়ার আগে হজ পালনকারীদের শারীরিক ও মানসিক বিশেষ কিছু প্রস্তুতি গ্রহণ করা আবশ্যক। আবার এমন কিছু অভ্যাস রয়েছে যেগুলো পরিত্যাগ করাও জরুরি।

আল্লাহ তাআলা কর্তৃক ফরজ করা ইবাদত হজ সম্পাদনের আগে সে বিষয়গুলোর প্রতি দেশে থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ ও গুরুত্ব দেয়া জরুরি তা তুলে ধরা হলো-

হজে যাওয়ার আগে যে প্রস্তুতি জরুরি

> হজের যাবতীয় খরচাদি বৈধ অর্থের উৎস থেকে করা।
> হজের যাবতীয় সরঞ্জামাদি কেনা-কাটা সম্পন্ন করা।
> পাসপোট, টাকা-পয়সা ও জরুরি কাপজপত্র রাখার ব্যাগ এবং বেল্ট সংগ্রহ করা।
> আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের কাছে দায়-দাবি মুক্ত হওয়া জরুরি।
> ওসিয়ত থাকলে তা সম্পাদন করা।
> অবশ্যই ঋণ পরিশোধ করা।
> হজের আগেই দুনিয়ার কাজ-কারবার থেকে পেরশানিমুক্ত হওয়া।
> ইবাদত-বন্দেগির মন-মানসিকতা তৈরির অভ্যাগ গড়ে তোলা
> হজের নিয়ম-কানুনগুলো ভালোভাবে জেনে নেয়া।
> কুরআন তেলাওয়াত সহিহ না হলে, তা গুরুত্বসহকারে শিখে নেয়া।
> সব ধরনের ইচ্ছা, লোভ-লালসা ত্যাগ করা।
> সব ধরনের খারাপ কাজ হতে বিরত নেওয়া।
> বিলাসিতা, পদমর্যাদা, গর্ব ও অহংকার ত্যাগ করা।
> ইবাদত ও কবর জেয়ারতের প্রতিটি মুহূর্তে তাড়াহুড়া না করে ও বিনয়ী হওয়া।
> দুনিয়ার সব ধরনের অন্যায় কাজ থেকে নিজেকে বিরত রাখা।

মনে রাখতে হবে

হজ মুসলিম উম্মাহর জন্য আল্লাহ তাআলার এক মহানির্দশন। এ ইবাদত পালনে যেমন অর্থের প্রয়োজন তেমনি প্রয়োজন মানসিক ও শারীরিক সক্ষমতা।

বিশেষ করে –

হজের তালবিয়া সহিহ করে শিখে নেয়ার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ দোয়াগুলোও শিখে নেয়া।

সর্বোপরি নিজেকে হজের জন্য এভাবে তৈরি করা যে-

‘হজ পালনে দুনিয়ার জীবনের শেষ সফর। তাই মৃত্যুর প্রস্তুতি নিয়েই বাইতুল্লায় যাত্রার প্রস্তুতি গ্রহণ করা।’

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে শারীরিক, মানসিক ও আত্মিক প্রস্তুতি গ্রহণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

Top