আপডেটঃ
কক্সবাজার-রামুর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকাকে জয়ী করুন-এমপি কমলঘুষের টাকা সহ চমেক এর কর্মচারীকে হাতেনাতে আটক করেছে দুদক৭নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী জামশেদ’র মনোনয়নপত্র জমাঢাকায় ইয়াবার চালান নিয়ে উখিয়া কলেজের ছাত্রসহ গ্রেফতার ৪সিইসির সঙ্গে বৈঠকে বিএনপির প্রতিনিধি দলকর্ণফুলীতে মোটর সাইকেলের বিরুদ্ধে পুলিশী অভিযানচট্টগ্রাম হোটেলে জামায়াত-শিবির সন্দেহে আড়াইশ জন আটকব্রাজিল নাকি আর্জেন্টিনা?সেই জার্মানিই এখন শূন্য থেকে শীর্ষে!রোহিঙ্গাদের দেখতে আসছেন জাতিসংঘ মহাসচিব ও বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্টচকরিয়ায় বড়শি নিয়ে মাছ ধরতে গিয়ে শিশুর মৃত্যুপৌরবাসীর ভালবাসায় সিক্ত নৌকার প্রার্থী মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যানকক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ১৩কক্সবাজার আন্চলিক পাসপোর্ট অফিসে বদলীল আদেশ অমান্য করে বহাল আছে সত্যব্রত শর্মাচকরিয়ায় বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে দর্শনার্থী বাড়তি বিনোদনে যোগ হয়েছে আকর্ষনীয় তিন জোড়া আফ্রিকান জেব্রা

রোজা থাকার পর ইফতারে যা খাবেন

iftar.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ মুসলমানদের জন্য রমজান সবচেয়ে পবিত্রতম মাস। রোজার মাসে সেহরি ও ইফতার অনেকটা ইবাদতের মতো। সারাদিন রোজা থাকার পর ইফতার প্রতিটি রোজাদারের জন্য অত্যন্ত আনন্দের।

ইফতারিতে খাবারের নানা ধরনের আয়োজন থাকে প্রত্যেক বাড়িতে। তবে সারাদিন রোজা থাকার পর একবারে অনেক খাবার খেলে তা হজমে সমস্যা তৈরি করতে পারে।

ইফতারির সময় খাওয়া শুরু করার পূর্বে প্রথমেই শরীরের পানিশূন্যতা দূর করা দরকার। এজন্য পর্যাপ্ত পানি পান করুন। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ফলের রস, শরবত কিংবা দুধও পানিশূন্যতা দূর করতে সাহায্য করে।

সাধারণত খেজুর দিয়ে রোজা ভাঙা হয়। কারণ এতে প্রাকৃতিকভাবে প্রচুর পুষ্টি উপাদান রয়েছে। এটি শরীরে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। সারাদিন রোজা থাকলে সাধারণত রক্তে শর্করার পরিমাণ কমে যায়, তখন মাথাব্যথা হয়। এসময় দুইটি খেজুর খেলে শর্করার পরিমাণ ঠিক হয়।

ইফতারিতে স্যুপ খাওয়া খুবই স্বাস্থ্যকর। এতে প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে এবং এটি শরীরে আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। ইফতারির সময় সবজি, টমেটো কিংবা মুরগির তৈরি স্যুপ খেতে পারেন। যদি গরমের এই সময় গরম স্যুপ খেতে ভালো না লাগে তাহলে ঠান্ডা স্যুপ খেতে পারেন।

ইফতারিতে শাকসবজি খেতে পারলে তা শরীরের জন্য খুবই উপকারী হয়। সালাদ, স্যুপ কিংবা অন্য যেকোনো খাবারে শাকসবজি যোগ করতে পারেন।

ইফতারির সময় খুব বেশি চর্বিযুক্ত প্রোটিন খাওয়া ঠিক নয়। বরং চর্বি ছাড়া প্রোটিন মানে মাছ, মুরগির মাংস, টার্কি এগুলো খেতে পারেন।

ইফতারির সময় খুব তাড়াহুড়া করে না খাওয়াই ভালো। সারাদিন খালি পেটে থাকার পর দ্রুত কিংবা বেশি পরিমাণে খাবার খেলে হজম এবং গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হতে পারে। বরং অল্প অল্প করে ধীরে ধীরে খাবার খান। তাহলে খাবার ভালোভাবে হজম হবে।

ইফতারিতে যতটা সম্ভব ভাজাপোড়া এড়িয়ে চলবেন। এছাড়া এই সময় খুব বেশি পরিমাণে চর্বিযুক্ত, লবণাক্ত এবং চিনিযুক্ত খাবার খাওয়াও ঠিক নয়।

Top