আপডেটঃ
অস্ট্রেলিয়াকে বিপক্ষে রেকর্ড জয় পাকিস্তানেরসৌদি আরব থেকে দেশের পথে প্রধানমন্ত্রীঐক্যফ্রন্টের স্থগিত সমাবেশ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন কাদের‘ঘ’ ইউনিটের ফল নিয়ে বিভ্রান্তি নেই : ঢাবি উপাচার্যযে কারণে বহিষ্কৃত হলেন বি. চৌধুরী-মান্নান-মাহীমহা-সংকটে সৌদি রাজতন্ত্র, রক্ষা মিলবে কী?সেঞ্চুরি সব সময়ই স্পেশাল: সৌম্যআইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিতপ্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গাপূজাগর্জনিয়ায় সন্ত্রাসী কয়দায় নিরহ এক যুবক কে পেটালো প্রতিপক্ষকর্ণফুলীর জুলধায় পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দউন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো নৌকায় ভোট দিনবর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতির পিতার কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনওয়াশিংটনের ‘বার্তা’ কাদেরকে জানালেন বার্নিকাটনভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে সংসদ নির্বাচনের তফসিল

বনবিভাগের জমিতে অবৈধভাবে বিদ্যুতের লাইন নির্মাণকালে শ্রমিক আটক

IMG_20180517_205926-650x361.jpg
মিছবাহ উদ্দিন, ঈদগাঁও:
কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের আওতাধীন ঈদগাও মেহেরঘোনা রেঞ্জের কালির ছড়া বনবিট এলাকায় বনবিভাগের জায়গায় অবৈধভাবে পল্লি বিদ্যুতের খুটি স্থাপন করে লাইন নির্মাণকালে এক শ্রমিককে আটক করেছে বনবিট কর্মকর্তা। ১৭ মে বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে কালিরছড়া বিটকর্মকর্তা রাজীবের নেতৃত্বে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত শ্রমিক টিকাদার রিপনের পরিচালনাধীন সুমন ইলেকট্রিক প্রতিষ্টানের নির্মাণ শ্রমিক মুস্তাফিজ (৩০) বলে জানা যায়।
মেহেরঘোনা রেঞ্জকর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়- থলিয়াঘোনা, ধলিরছড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় বনবিভাগের জায়গায় পল্লিবিদ্যুৎ লাইন নির্মাণকাজ শুরু করলে কয়েক মাস আগে কক্সবাজার পল্লিবিদ্যুৎ এজিএম বরাবর নোটিশ প্রদান করা হয়েছিল। যেখানে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে স্থাপনকৃত খুটি উত্তোলনের জন্য অনুরুধ করা হয়। কিন্তু তারা সেই নিষেধাজ্ঞা তুয়াক্কা না করে দিনে ও রাতের আধারে অবৈধভাবে লাইন নির্মাণকাজ অব্যাহত রাখায় এ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে।
মেহেরঘোনা রেঞ্জকর্মকর্তা মামুন মিয়া জানান, এভাবে বনবিভাগের জায়গায় নতুন নতুন বিদ্যুতের লাইন নির্মাণ করতে থাকলে বনবিভাগের বিশাল জায়গা ভূমিদস্যুদের কবলে চলে যাবে তাই এ কাজ বন্ধ করে দিয়ে শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। আটককৃত শ্রমিকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবাস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
এ ব্যাপারে কক্সবাজার পল্লিবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের জি এম নূর হোসেন আজম মজুমদার জানান, যে সব লাইন নির্মাণের ব্যপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল তা না করার জন্য বলে দেওয়া হয়েছিল কিন্তু ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তা কেন করছে তা আমার জানা নেই।
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পরিচালক এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার জসিম উদ্দিন বলেন, বনবিভাগের জায়গায় বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণকাজ না করতে আমাদের পক্ষ থেকে নিষেধ ছিল কিন্তু এলাকার লোকজন বনবিভাগকে ম্যানেজ করে ঠিকাদারি প্রতিষ্টানকে দিয়ে এ ধরনের অনেক লাইন নির্মাণ করেছে। এটা ও আমাদের না জানিয়ে নির্মাণকাজ চালাচ্ছিল একই কায়দায়। তদন্তপূর্বক  যেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এভাবে লাইন নির্মাণকাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
Top