আপডেটঃ
যে দানে চরম শত্রু থেকে বন্ধু হলেন প্রিয়নবিআসছে শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ!ঈদে সাত পর্বের নাটকে ঊর্মিলাবাংলাদেশের যে কোনো সংকটে পাশে থাকবে ভারতহৃদয় জেতা ক্রোয়েশিয়া আজ ট্রফিও জিতুক!কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বহুতল অফিস ভবনের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধনচট্টগ্রাম পানির ট্যাংক থেকে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধারআওয়ামীলীগের প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত, ৮৫টি সংসদীয় আসনে আসছে নতুন মুখবহিষ্কৃত এএসআই ইয়াবা সহ ডিবির হাতে গ্রেফতার:চট্টগ্রাম শাহ আমানত মার্কেটে আগুনক্ষমতা চিরস্থায়ী করার পাঁয়তারা করছে সরকার: ফখরুলভিসির বাসভবনে হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে: প্রধানমন্ত্রীকার্ডের লেনদেনে আসছে ‘এনএফসি’ প্রযুক্তিফাইনালে ‘ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রস্তুত ক্রোয়েশিয়াগ্রামীণ গল্পে প্রসূন

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘের সাথে কাজ করবে ওআইসি

OIC-Ukhiya-04-05-2018-450x300.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ওআইসি জোটভূক্ত ৫৮টি ইসলামিক দেশের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শনকালে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থান পর্যবেক্ষণ ও নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের মূখ থেকে নির্যাতনের করুন কাহিনী ধৈর্য্য সহকারে শুনেন।

পরিদর্শন শেষে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বলেন, রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যর্পণের বিষয়ে জাতিসংঘের সাথে কাজ করবে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশান (ওআইসি)। সামনে বর্ষা মৌসুমে দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে ও প্রত্যাবাসন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ওআইসি রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে।

ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ৪৫তম সম্মেলন উপলক্ষে বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের ৭০ জন প্রতিনিধিদের একটি দল শুক্রবার সকালে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরগুলো পরিদর্শনে আসেন। এদের মধ্যে রয়েছেন আটজন মন্ত্রী, তিনজন প্রতিমন্ত্রী, আটজন পররাষ্ট্রসচিব।তিনিধি দলের প্রধান হাশেম ইউছেফ বলেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর যে নিপীড়ন চালিয়েছে তা গণহত্যা। বিশ্বব্যাপী এ ঘটনার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। শুরু থেকে ওআইসি বাংলাদেশে প্রশংসিত উদ্যোগের পক্ষে। এখন এ সংকটের সমাধানের জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলনে প্রধান আলোচনার বিষয় হবে রোহিঙ্গা ইস্যু।

উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলটি বলেছে, রোহিঙ্গা সমস্যা মিয়ানমারের তৈরি। মিয়ানমারকে এর সমাধান করতে হবে। রোহিঙ্গারা নিরাপদে যেন স্বদেশে বাস করতে পারেন তার জন্য পরিবেশ তৈরির দায়িত্বও মিয়ানমার সরকারের।

ওই সময় বাংলাদেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, বিভিন্ন দেশের কুটনৈতিক, বাংলাদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত, আর্ন্তজাতিক দাতা সংস্থার প্রতিনিধি, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কর্মকর্তা মো: আবুল কালাম, জেলা পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরী প্রতিনিধিদলটির সাথে ছিলেন।

Top