আপডেটঃ
“সংসদ নির্বাচন” ইসির ক্ষমতার প্রয়োগ দেখতে চাইহাঁটলে ওজন কমে, কিন্তু কতক্ষণ?টিভিতে ফেরদৌস-মৌসুমীর ‘পোষ্ট মাস্টার ৭১’জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাকে পাচ্ছেন কোটি টাকা?কালো টাকায় মনোনয়ন বাণিজ্যআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের সত্যিকারের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হয়: শেখ আফিল উদ্দিন এমপিপ্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছানোর লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে আওয়ামীলীগ সরকার: সিরাজুল হক মঞ্জু৪৮তম বিজয় উদযাপনে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধবিএনপি নেতাকর্মীদের গণগ্রেপ্তার বন্ধ না করলে কঠোর আন্দোলন : শাহজাহান চৌধুরীআ’লীগের জুলুম-নির্যাতনের জবাব দিতে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ধৈর্য ধরুন : লুৎফুর রহমান কাজলউখিয়া-টেকনাফের সাধারন জনগনের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে নৌকার প্রার্থী শাহীনক্রিকেটের মতো রাজনীতিতেও অবদান রাখতে চান মাশরাফি১৯ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম বন্ধসেনাবাহিনীকে গ্রেপ্তারের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে : সিইসি

খালেদা জিয়ার জামিনের সিদ্ধান্ত আজ

khaleda-zia-large-20180220160839-1.jpg

ওয়ান নিউজঃ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে হাইকোর্ট আদেশ দেবেন আজ। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেবেন।

এ জন্য সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে আজকের কার্যতালিকায় আবেদনটি এক নম্বরে রাখা হয়েছে। এ মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড মাথায় নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আদালত কী আদেশ দেন, এতে তিনি কারামুক্ত হতে পারবেন কিনা তা জানতে সবাই আদালতের দিকে তাকিয়ে আছেন।হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী ১৫ দিনের মধ্যে নথি আসার সময়সীমা শেষ হয়েছে বিষয়টি খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতের নজরে আনেন গত বৃহস্পতিবার। পরে আদালত জামিন বিষয়ে আদেশের জন্য রোববার (আজ) দিন ধার্য করেন। এরপর থেকেই সবার অপেক্ষা বাড়ছে। বিচারপতিরা কী আদেশ দেবেন তা জানতে দলের নেতাকর্মীসহ অনেক মানুষ উন্মুখ হয়ে আছেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলেছেন, এ মামলায় জামিন হবে বলে তারা আশাবাদী। দুদকের মামলায় ৫-১০ বছরের সাজা হলেও আসামির জামিনের নজির আছে। অন্য কোনো মামলায় যদি নতুন করে গ্রেফতার দেখানো না হয় তবে জামিন পেলে খালেদা জিয়ার কারা মুক্তিতে বাধা নেই বলেও তারা জানান। অন্যদিকে দুদকের আইনজীবী জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে আদালত কী আদেশ দেন তা কালই (আজ) জানা যাবে। নথি আসার সময় এখনও শেষ হয়নি বলে জানান তিনি। তিনি বলেন শুক্র ও শনিবার কার্যদিবসের হিসাব থেকে বাদ দেয়া হলে ১৫ দিন শেষ হবে আগামী বৃহস্পতিবার। আর যদি শুক্র ও শনিবার ধরে হিসাব করা হয় তবে মেয়াদ শেষ হবে কাল (আজ)।

জানা গেছে, মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানোর আদেশ গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালতে পৌঁছেছে। সে মোতাবেক ১৫ দিন শেষ হবে আজ। এ প্রসঙ্গে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর পেশকার মোকাররম হোসেন যুগান্তরকে বলেন, বিচারিক নথি আগামী রোববার (আজ) হাইকোর্টে পাঠানো হচ্ছে। তিনি বলেন, নথি প্রস্তুতের আনুষঙ্গিক কাজগুলো করা হচ্ছে। রোববার এ মামলার নথি উচ্চ আদালতে পাঠানো হবে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে ২০ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে আপিল করেন তার আইনজীবীরা। আপিল আবেদনে নিু আদালতের দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে ৪৪টি যুক্তি দেখানো হয়। আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিচারিক আদালতের দণ্ড স্থগিত চাওয়া হয়। ২২ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে বিচারিক আদালতের দেয়া জরিমানার আদেশও স্থগিত করা হয়। এ ছাড়া আপিল বিচারাধীন থাকাবস্থায় জামিন চেয়ে খালেদা জিয়ার করা আবেদন ২৫ ফেব্রুয়ারি শুনানির জন্য রাখেন আদালত। আদেশে এ মামলায় বিচারিক আদালতের নথি তলব করে ১৫ দিনের মধ্যে তা হাইকোর্টে পাঠাতে সংশ্লিষ্ট আদালতকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি শেষে আদালত বলেছিলেন বিচারিক আদালতের নথি আসার পর আদেশ দেবেন।

জামিন বিষয়ে খালেদা জিয়ার প্যানেল আইনজীবী অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন যুগান্তরকে বলেন, ‘আমরা শুনেছি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়াকে অন্য কোনো মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখাবেন না। আমরাও আশা করছি তাই।’ তিনি বলেন, দুদক যেহেতু সাজা বৃদ্ধির কোনো আবেদন করেনি সেহেতু আমরা আশা করছি খালেদা জিয়ার জামিন হলে তারা (দুদক) আপিলে যাবে না। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া জামিন পাওয়ার যোগ্য।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক ড. আক্তারুজ্জামানের আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। একই আদালত খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয় আসামির সবাইকে মোট ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা ৮০ পয়সা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেন। এ অর্থ দণ্ডের টাকা প্রত্যেককে সমান অঙ্কে প্রদান করতে হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়। রায়ের পর থেকে কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। বিচারিক আদালতের দেয়া রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি পাওয়ার পর ৩২টি যুক্তি দেখিয়ে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন দেয়া হয়। এতে বলা হয়েছে, আবেদনকারীর বয়স ৭৩ বছর। তিনি শারীরিকভাবে বিভিন্ন জটিলতায় ভুগছেন। তিনি ৩০ বছর ধরে গেঁটেবাত, ২০ বছর ধরে ডায়াবেটিস, ১০ বছর ধরে উচ্চ রক্তচাপ ও রক্তে আয়রন ঘাটতিতে ভুগছেন।

যুগান্তর

Top