আপডেটঃ
ওয়াইফাইয়ের গতি বাড়ানোর জাদুকরি ৪ উপায়কক্সবাজার থানার ওসির কক্ষে ভুয়া মেজর, অত:পর শ্রীঘরে…এবারও হজের খুতবায় নতুন খতিবফাইনালে হেরে গেল বাংলাদেশের মেয়েরানির্বাচনে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই : কাদেরযারা নাগরিক স্বাধীনতা কেড়ে নেয় তারা আগ্রাসী শক্তিফেসবুক-টুইটারে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কোনো আইডি নেইজাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেইচট্টগ্রাম ফয়স’লেকে নৃশংস খুনের ঘটনায় পুলিশের সংবাদ সম্মেলন– সাবেক স্বামীকে খুন করতে চীন দেশ হতে বাংলাদেশ আগমণ ডাঃ রুকসানারউখিয়া-টেকনাফবাসী রোহিঙ্গাদের জন্য যে উদারতা দেখিয়েছে তা মাদকের বদনামে ধুলিস্যাৎ করা যাবেনাঃ বাহাদুরমাস্টার্স ফাইনালে কক্সবাজার সিটি কলেজের পাশের হার ৮৭%মির্জা ফখরুলের বক্তব্য ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতা’র সামিল: কাদেরঈদ যাত্রা: শিডিউলে নেই ট্রেন, ঠিক সময়ে মিলছে বাসঈদ: মশলার জোগাড়, দেরি নয় আরনিরাপদ বাংলাদেশের দাবিতে আসুন ঐক্যবদ্ধ হই: ফখরুল

ডিভিশন পেলে খালেদা জিয়া যেসব সুবিধা পাবেন

Khaleda-BNP-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ দুর্নীতির মামলায় কারাগারে বন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ডিভিশন পাওয়ার বিষয়ে অবশেষে অনিশ্চয়তা দূর হয়েছে। আদালত তাকে জেলকোড অনুযায়ী ডিভিশন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।কারা অধিদফতর জানিয়েছে, আদালতের নির্দেশ পাওয়ায় খালেদা জিয়াকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সাবেক রাষ্ট্রপতির স্ত্রী ও জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব রাজনৈতিক দলের প্রধান হিসেবে ডিভিশন দেয়া হবে।কারাসূত্র জানিয়েছে, জেলকোডের অধ্যায় ২৭, রুল ৯১০(১) অনুযায়ী খালেদা জিয়া ডিভিশন-১ বন্দির মর্যাদা পাবেন। এক্ষেত্রে তিনি পছন্দের খাবার, বিছানা, দৈনিক পত্রিকা, চেয়ার-টেবিল, ড্রেসিং টেবিল, পছন্দের চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসার সুবিধা পাবেন।এ ছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসন প্রথম শ্রেণির একজন বন্দি হিসেবে ১৫ দিনের পরিবর্তে ৭ দিনে একবার চিঠি লেখার সুযোগ পাবেন।খালেদা জিয়া একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দি হিসেবে সকালে ৮৭ গ্রাম আটার রুটি ও ৮৭ গ্রাম ডাল-সবজি পান। দুপুর ও রাতে ৪৯৫ গ্রাম সরু চালের ভাত, ২১৮ গ্রাম মাছ-মাংস এবং সারা দিনে প্রায় ১৪৫ গ্রাম ডাল পাবেন।এ ছাড়া তেল, লবণ, মরিচসহ সব মিলিয়ে তিনবেলা খাবার বাবদ একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দির জন্য সরকারিভাবে বরাদ্দ হয় ১১৫ টাকা।গত বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত।রায়ের পর পরই খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় জেলখানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কারাগারের ভেতরে প্রধান ফটকসংলগ্ন জেল সুপারের কক্ষে রাখা হয়েছে তাকে।এখানে খালেদা জিয়ার ব্যবহারের জন্য একটি পুরনো ফ্রিজ দেয়া হয়েছে। পাশের রুমে গ্যাসের চুলায় রান্নার ব্যবস্থা করা হয়েছে।এদিকে শনিবার বিকালে কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ডিভিশন দেয়া হয়নি। তাকে একজন সাধারণ কয়েদি হিসেবে রাখা হয়েছে। নির্জন কারাবাসে রাখা হয়েছে নেত্রীকে। সেখানে অন্য কোনো কারাবন্দি নেই। এটি অন্যায়, আমরা এ বিষয়ে আদালতে যাব।খালেদা জিয়ার সার্বিক অবস্থার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ম্যাডাম স্বাভাবিক আছেন, ভালো আছেন; তবে তার শরীরের অবস্থা ভালো নয়।’খালেদা জিয়ার ডিভিশন পাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘জেলকোড অনুযায়ী তিনি ডিভিশন পান। তিনি যেহেতু তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও সিনিয়র নাগরিক, তাই তার এ সুবিধা পাওয়া উচিত।’মওদুদ আহমদ আরও বলেন, ‘গণমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছি, সরকার বলেছে- ম্যাডামকে তার গৃহপরিচারিকা ও ডিভিশন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমরা আজ দেখে এসেছি- এসব মিথ্যা। তাকে একটি নির্জন ভাঙা বাড়িতে রাখা হয়েছে। উনার খাবারের ক্ষেত্রেও কোনো পরিবর্তন নেই। সাধারণ বন্দিরা যে খাবার পান, তাকেও সেই খাবার দেওয়া হচ্ছে। ম্যাডাম এসব খাবারে অভ্যস্ত নয়।’
ব্যারিস্টার মওদুদের অভিযোগের পর রোববার সকালে খালেদা জিয়ার ডিভিশন চেয়ে আদালতে আবেদন করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার জাকির হোসেন ভুঁইয়া ও অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম।
এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ আদালত খালেদা জিয়াকে কারাগারে জেলকোড অনুযায়ী ডিভিশন দেয়ার আদেশ দেন।

Top