আপডেটঃ
ওয়াইফাইয়ের গতি বাড়ানোর জাদুকরি ৪ উপায়কক্সবাজার থানার ওসির কক্ষে ভুয়া মেজর, অত:পর শ্রীঘরে…এবারও হজের খুতবায় নতুন খতিবফাইনালে হেরে গেল বাংলাদেশের মেয়েরানির্বাচনে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই : কাদেরযারা নাগরিক স্বাধীনতা কেড়ে নেয় তারা আগ্রাসী শক্তিফেসবুক-টুইটারে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কোনো আইডি নেইজাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেইচট্টগ্রাম ফয়স’লেকে নৃশংস খুনের ঘটনায় পুলিশের সংবাদ সম্মেলন– সাবেক স্বামীকে খুন করতে চীন দেশ হতে বাংলাদেশ আগমণ ডাঃ রুকসানারউখিয়া-টেকনাফবাসী রোহিঙ্গাদের জন্য যে উদারতা দেখিয়েছে তা মাদকের বদনামে ধুলিস্যাৎ করা যাবেনাঃ বাহাদুরমাস্টার্স ফাইনালে কক্সবাজার সিটি কলেজের পাশের হার ৮৭%মির্জা ফখরুলের বক্তব্য ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতা’র সামিল: কাদেরঈদ যাত্রা: শিডিউলে নেই ট্রেন, ঠিক সময়ে মিলছে বাসঈদ: মশলার জোগাড়, দেরি নয় আরনিরাপদ বাংলাদেশের দাবিতে আসুন ঐক্যবদ্ধ হই: ফখরুল

তিনদিনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা বিএনপির

Rizvi.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ নানা ইস্যুতে রাজপথে বিক্ষোভ, প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন ও আলোচনা সভার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এবার ভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে অবস্থান ও অনশন। এ ধরনের কর্মসূচি বিগত সময়ে পালন করেনি বিএনপি।

দু’দিন কর্মসূচি পালন শেষে শনিবার বিকেলে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, সোমবার মানববন্ধন, মঙ্গলবার অবস্থান এবং বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি পালন করা হবে। রিজভী বলেন, ‘অবস্থান কর্মসূচি হবে এক ঘণ্টা। জেলাগুলো সুবিধামতো সময়ে তা করবে। ঢাকার অবস্থান কর্মসূচির স্থান পরে জানানো হবে।’

খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার আগে দলীয় নেতাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি গ্রহণের নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। জিয়া এতিমখানা দুর্নীতির মামলায় তাকে সাজা দিয়ে বৃহস্পতিবার কারাগারে পাঠানোর পর বিএনপি দু’দিনের বিক্ষোভ কর্মসূচি দেয়। পুলিশের বাধার মুখে ওই কর্মসূচি ঠিকভাবে পালন করতে পারেনি বিএনপি। এ অবস্থায় নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করল দলটি। এছাড়া করণীয় নির্ধারণে শনিবার সন্ধ্যায় বৈঠকে বসছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, শনিবারের বিক্ষোভ কর্মসূচি থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহ-সভাপতি নবীউল্লাহ নবী, যুবদলের সাবেক নেতা মিজানুর রহমান জিমি, অলিউদ্দিনসহ ৫০ জন, নারায়ণগঞ্জে ১৩ জন, নেত্রকোনায় ৫ জন, চট্টগ্রাম উত্তর ও গাইবান্ধায় একজন করে, পিরোজপুরে ৩ জন, টাঙ্গাইলে ৬ জন, ফেনীতে ২ জন, কুমিল্লায় ১১ জন, নাটোরে ১৫ জন, ভোলায় একজন এবং নড়াইলে ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ফকিরাপুল পৌঁছলে তা পুলিশের ধাওয়ায় ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। গত ৩০ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ৪ হাজার ২০০ জনের বেশি বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেন রিজভী।

রিজভী বলেন, ‘সরকার মনে করেছে, বন্দি করে দেশনেত্রীর মনোবলকে দুর্বল করবে, তার বিরুদ্ধে আরও ষড়যন্ত্র করবে। এটা পারবেন না। জনগণের নেত্রী জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য যেখানে থাকুন, সেখান থেকে অটুট মনোবল নিয়ে নেতৃত্ব দিয়ে যাবেন অব্যাহতভাবে। সেজন্য আমরা এ নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আতাউর রহমান ঢালী, আবদুল হালিম ডোনার, কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল কবির, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, আমিনুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

Top