আপডেটঃ
শেখ হাসিনার গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তরুণ তালিকায় যারানজিব আমার রাজনৈতিক বাগানের প্রথম ফুটন্ত ফুল- মেয়র মুজিবুর রহমাননাইক্ষ্যংছ‌ড়ি‌তে ডাকাত আনোয়ার বলি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তগণমাধ্যমের জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে’শহীদ জাফর মাল্টিডিসিপ্লিনারী একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনসরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনজাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রীভারতকে মাত্র ১৭৪ রানের চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশেরবেনাপোল সীমান্তে অস্ত্র-গুলি মাদকদ্রব্য সহ আটক ১আগামী মনোনয়নে নেত্রীর গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তালিকায় যারাকক্সবাজারে হারিয়ে যাওয়া ব্যাগ ফিরিয়ে দিলেন টমটম চালককক্সবাজারে ইপসা’র নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ক প্রশিক্ষণ সভা অনুষ্ঠিতমিডিয়ার হাত বেঁধে দিয়েছে সরকার : নজরুলদলে নেই মুশফিক-মোস্তাফিজ, অভিষেক দু’জনেরগোলদিঘীর সৌন্দর্য্য বর্ধন, মাস্টার প্ল্যান ও ইমারত নির্মাণ বিধিমালা- ১৯৯৬ নিয়ে ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের জনসাধারণের সাথে কউকের মতবিনিময় সভা সম্পন্ন

যে কারণে স্মার্টফোন পাচ্ছেন না ইরান ও উ. কোরিয়ার ক্রীড়াবিদরা

292102_15.jpg

 

ওয়ান নিউজ ড়েক্স

দক্ষিণ কোরিয়া ঘোষণা করেছে, আগামীকাল শুক্রবার থেকে সেদেশে শুরু হতে যাওয়া শীতকালীন অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী ইরানি ও উত্তর কোরিয়ান ক্রীড়াবিদদের স্যামসং স্মার্টফোন দেয়া হবে না। এই অলিম্পিক গেমসে অংশগ্রহণকারী বিশ্বের বাকি দেশগুলোর ক্রীড়াবিদদের জন্য বিনামূল্যে এই ফোন সরবরাহ করা হবে।

পিয়ংচ্যাং অলিম্পিকের আয়োজকদের বরাত দিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইওনহ্যাপ জানিয়েছে, ইরান ও উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, স্যামসং ইলেকট্রনিক্স আসন্ন অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী সব ক্রীড়াবিদ ও আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কর্মকর্তাদের সরবরাহ করার জন্য প্রায় ৪,০০০ ‘গ্যালাক্সি নোট ৮’ ফোন প্রস্তুত রেখেছে। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার ২২ এবং ইরানের চার ক্রীড়াবিদকে এই সুবিধার বাইরে রাখা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা দাবি করছেন, সামরিক কাজে স্মার্টফোন ব্যবহারের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। কাজেই ইরান ও উত্তর কোরিয়ার কাছে এ ধরনের পণ্য সরবরাহে জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা থাকায় তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

স্বাভাবিকভাবেই দক্ষিণ কোরিয়ার এ সিদ্ধান্ত ইরানে প্রচণ্ড ক্ষোভ তৈরি করেছে। কারণ, স্যামসং ইলেকট্রনিক্সের বিশাল বাজার রয়েছে ইরানে। যে স্মার্টফোন সামরিক কাজে ব্যবহৃত হতে পারে বলে দাবি করা হচ্ছে তা ইরানে অবস্থিত স্যামসং কোম্পানির হাজার হাজার শোরুমে দেদারসে বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া, ইরানে দক্ষিণ কোরিয়ার এই কোম্পানির শোরুমগুলোতে ওয়াশিং মেশিন, টেলিভিশন, এসি এমনকি টেলিকমিউনিকেশন্স যন্ত্রপাতিরও বিপুল সম্ভার রয়েছে।

ইরানে স্যামসংয়ের আনুষ্ঠানিক দপ্তর রয়েছে এবং তারা গ্রাহককে বিক্রয়োত্তর সেবাও প্রদান করে থাকে।

ইরানের সবচেয়ে বড় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ মার্কেট- ‘ক্যাফে বাজার’-এর পক্ষ থেকে প্রকাশিত রিপোর্টে জানা গেছে, দেশটির শতকরা ৫১ ভাগ স্মার্টফোট ব্যবহারকারী স্যামসং কোম্পানির স্মার্টফোন ব্যবহার করেন যার অর্থ দাঁড়ায় এক কোটি ৭৮ লাখ ইরানির হাতে এখন স্যামসং ইলেকট্রনিক্সের স্মার্টফোন রয়েছে।

এ অবস্থায় শীতকালীন অলিম্পককে সামনে রেখে দক্ষিণ কোরিয়ার এ ঘোষণা ইরানি জনগণের মনে ক্ষোভের পাশাপাশি হাস্যরস তৈরি করেছে বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।

Top