আপডেটঃ
ওয়াইফাইয়ের গতি বাড়ানোর জাদুকরি ৪ উপায়কক্সবাজার থানার ওসির কক্ষে ভুয়া মেজর, অত:পর শ্রীঘরে…এবারও হজের খুতবায় নতুন খতিবফাইনালে হেরে গেল বাংলাদেশের মেয়েরানির্বাচনে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই : কাদেরযারা নাগরিক স্বাধীনতা কেড়ে নেয় তারা আগ্রাসী শক্তিফেসবুক-টুইটারে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কোনো আইডি নেইজাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেইচট্টগ্রাম ফয়স’লেকে নৃশংস খুনের ঘটনায় পুলিশের সংবাদ সম্মেলন– সাবেক স্বামীকে খুন করতে চীন দেশ হতে বাংলাদেশ আগমণ ডাঃ রুকসানারউখিয়া-টেকনাফবাসী রোহিঙ্গাদের জন্য যে উদারতা দেখিয়েছে তা মাদকের বদনামে ধুলিস্যাৎ করা যাবেনাঃ বাহাদুরমাস্টার্স ফাইনালে কক্সবাজার সিটি কলেজের পাশের হার ৮৭%মির্জা ফখরুলের বক্তব্য ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতা’র সামিল: কাদেরঈদ যাত্রা: শিডিউলে নেই ট্রেন, ঠিক সময়ে মিলছে বাসঈদ: মশলার জোগাড়, দেরি নয় আরনিরাপদ বাংলাদেশের দাবিতে আসুন ঐক্যবদ্ধ হই: ফখরুল

খুটাখালীর পীর হাফেজ মাওলানা আবদুল হাই হুজুর আর নেই

FB_IMG_1516586780843.jpg

 

সৈয়দ আলম, কক্সবাজার

চকরিয়ার খুটাখালীর পীর ও প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন হাফেজ মাওলানা আবদুল হাই ২২ জানুয়ারি রাত ২টা ৪০ মিনিটে আলীকদম সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজেউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার উপ-সহকারি মেডিকেল অফিসার মো. আমিনুল ইসলাম তাঁর মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন।

 

রবিবার দিবাগত রাত সোয়া একটার সময় তাঁকে হাসপাতালে আনা হয়। এ সময় তিনি তীব্র শ্বাসকষ্টে ভূগছিলেন বলে কর্তব্যরত ডাক্তার ও উপস্থিত শুভকাঙ্খীরা জানান।

রবিবার (২১ জানুয়ারি) আলীকদম বাজার ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সীরাতুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাহফিলের দ্বিতীয় অধিবেশনে তাঁর সভাপতিত্ব করা কথা ছিলো।

বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নাছির উদ্দিন সওদাগর জানান, ‘হুজুর আমার বাসায় রবিবার বিকেল থেকে অবস্থান করছিলেন। রাতে মাহফিলে তাঁর সভাপতিত্ব করার কথা ছিলো। কিন্তু হুজুর অসুস্থতাবোধ করায় আমার বাসায় তিনি বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। তাঁর শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে রাত সোয়া একটার সময় বাসা থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘হাসপাতালের জরুরী বিভাগে তাকে রাখা হয়। এ সময় হুজুরের শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। তাই তাঁকে অক্সিজেন, স্যালাইন ও ইনজেকশন দেওয়ার হয়। কিন্তু ইশারায় তিনি এসব খুলে ফেলার তাগাদা দেন। একপর্যায়ে তিনি উঠে বসতে চাইলে তাঁকে বসানো হয়। কিছুক্ষণ পর উত্তরমুখি হয়ে শোয়ে যান। এ সময় তাঁর শরীর নিস্তেজ হতে থাকে এবং তাঁকে অস্ফুষ্টস্বরে কিছু পড়তে দেখা যায়। রাত ২ টা ৪০ মিনিটের সময় তিনি ইন্তেকাল করেন’।

এদিকে, গভীর রাতে হাসপাতালে তাঁর অসংখ্য মুরীদ, শুভাকাঙ্খী ও অনুগ্রাহীরা হাসপাতালে ভীড় করেন। ভোররাত ৪টার সময় তাঁকে আলীকদম সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে এ্যাম্বুলেসযোগে খুটাখালীতে নিয়ে যাওয়া হয়।

Top