আপডেটঃ
ঈদগাঁহর জনসভায় রামু থেকে এমপি কমলের নেতৃত্বে যোগ দেবে লক্ষাধিক জনতাসৈকতে অনুষ্ঠিত হলো জাতীয় উন্নয়ন মেলা কনসার্টকর্ণফুলীতে মা সমাবেশশেখ হাসিনার গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তরুণ তালিকায় যারানজিব আমার রাজনৈতিক বাগানের প্রথম ফুটন্ত ফুল- মেয়র মুজিবুর রহমাননাইক্ষ্যংছ‌ড়ি‌তে ডাকাত আনোয়ার বলি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তগণমাধ্যমের জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে’শহীদ জাফর মাল্টিডিসিপ্লিনারী একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনসরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনজাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রীভারতকে মাত্র ১৭৪ রানের চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশেরবেনাপোল সীমান্তে অস্ত্র-গুলি মাদকদ্রব্য সহ আটক ১আগামী মনোনয়নে নেত্রীর গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তালিকায় যারাকক্সবাজারে হারিয়ে যাওয়া ব্যাগ ফিরিয়ে দিলেন টমটম চালককক্সবাজারে ইপসা’র নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ক প্রশিক্ষণ সভা অনুষ্ঠিত

এক-এগারোর পুনরাবৃ‌ত্তি ঘটা‌নো যা‌বে না : ওবায়দুল

AL.-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ বিএনপির কারণে পুনরায় এক-এগারোর মতো পরিস্থিতির আশঙ্কা থাকলেও দেশে আর কোনো দিনই এটির পুনরাবৃত্তি ঘটানো যাবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর এক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আরেকটি ওয়ান-ইলেভেন হওয়ার আশঙ্কা আছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ভয়-আশঙ্কা আছে এই কারণে যে, ওয়ান ইলেভেন থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি। কিন্তু বিএনপি নেয়নি। বিএনপি তার বর্তমান অবস্থান জেনে গেছে। নির্বাচনের আগেই সারাদেশে আওয়ামী লীগের জোয়ার দেখে বিএনপি বুঝে গেঝে যে, আগামী নির্বাচনে তাদের পরিণতি কী।

তি‌নি ব‌লেন, ভোট পাওয়ার মতো কোনো কাজ বিএনপি করেনি। সে কারণে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করবে বিএনপি। আওয়ামী লীগ বিএনপির সেই দুরভিসন্ধি বাস্তবায়ন করতে দেবে না। বাংলাদেশে ১/১১এর পুনরাবৃত্তি ঘটানো যাবে না।

সংবাদ মসম্মেলনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনয়নের ব্যাপারে ১৬ জানুয়ারির মনোনয়ন বোর্ডের সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলেও জানান কাদের।

তিনি বলেন, প্রার্থী ঘোষণার আগে কেউ প্রার্থী নন। অনেকে নিজের মতো করে দলের সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন, করছেন। এতে প্রমাণিত হয় না যে, প্রার্থী নির্বাচন হয়ে গেছে। তবে, আতিকুল ইসলাম দলের সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন। সেই সময় শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘কাজ কর। সিদ্ধান্ত পরে’।

এর আগে সিটি করেপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতার পরিবর্তে একজন ব্যবসায়ীকে নির্বাচিত করা হয়েছিল। এবারো যারা আলোচনায় রয়েছেন তারা ব্যবসায়ী। একারণে অনেকে বলছেন, আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচন সামনে রেখে ক্রমশ ব্যবসায়ীদের দিকে ঝুঁকছে।

সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নেরে জবাবে ওবায়দুল বলেন, দলের প্রার্থী, দলীয় নেতা আর নির্বাচন এটার মধ্যে পার্থক্য আছে। এটা রাজনৈতিক স্ট্রাটেজি। স্ট্রাটেজিক এলায়েন্স। নির্বাচনে স্ট্রাটেজিক এলায়েন্স হয়। আর একজন রাজনীতিবিদ কি ব্যবসা করতে পারেন না? তারা চাঁদাবাজি করে খাবেন?

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক আহমদ হোসেন, এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাম্মী আক্তার, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

Top