আপডেটঃ
উখিয়া-টেকনাফবাসী রোহিঙ্গাদের জন্য যে উদারতা দেখিয়েছে তা মাদকের বদনামে ধুলিস্যাৎ করা যাবেনাঃ বাহাদুরমাস্টার্স ফাইনালে কক্সবাজার সিটি কলেজের পাশের হার ৮৭%মির্জা ফখরুলের বক্তব্য ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতা’র সামিল: কাদেরঈদ যাত্রা: শিডিউলে নেই ট্রেন, ঠিক সময়ে মিলছে বাসঈদ: মশলার জোগাড়, দেরি নয় আরনিরাপদ বাংলাদেশের দাবিতে আসুন ঐক্যবদ্ধ হই: ফখরুলসজল-মিমের বিপরীত ভালোবাসাপাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানচট্টগ্রাম যুবকের গলা কাটা লাশ: ডা.রোকসানা আটকযশোরের শার্শা সীমান্ত হতে ৭১৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারবিএনপি নেতা খসরুকে দুদকে তলববুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় গোলাম সারওয়ারঅটল বিহারী বাজপেয়ী আর নেইমুক্তিযোদ্ধা বিন্টু মোহন বড়ুয়া ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের নিবেদিত প্রাণ সমাজ সেবক- এমপি কমলবহু ব্যবসায়ীকে পথে বসিয়ে দেওয়া সেই প্রতারক ডিবির হাতে গ্রেফতার

অন্যের যেসব জিনিস ব্যবহার করবেন না

Life-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ কোনো জিনিস ভাগাভাগি করে ব্যবহার করলে আন্তরিকতা বাড়ে- এমন ধারণা প্রচলিত রয়েছে। কারণ কোনো জিনিস অন্যের সঙ্গে শেয়ার করার মধ্যে স্বাস্থ্যগত বিষয়টি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনা রেখে কিছু জিনিস অন্যের সঙ্গে শেয়ার না করাই ভালো। এগুলো একান্ত নিজের রাখাই উত্তম।

 

প্রত্যেকটা মানুষের আলাদা কিছু ব্যবহারিক সামগ্রী থাকে। আপনি যে টুথব্রাশ প্রতিদিন ব্যবহার করেন, সেটা নিশ্চয়ই অন্য কেউ ব্যবহার করুক তা চাইবেন না। এটা মোটেও স্বাস্থ্যসম্মত নয়। একই কথা বলতে হয় রেজারের বেলায়। সেটাও একজনেরটা আরেকজন ব্যবহার করা মোটেও স্বাস্থ্যকর বা রুচিসম্মত না। অনেকটা এমনই কিছু সামগ্রী আছে যা অন্য কারো সাথে শেয়ার বা ভাগাভাগি করা উচিত না-

 

তোয়ালে
একজনের তোয়ালে আরেকজন ব্যবহার করা ঠিক না। কোনও সুইমিং ক্লাব বা স্পোর্টস ক্লাবে গেলে বিষয়টা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে আপনাকে। এতে করে অন্যের দেহের ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস বা চর্মরোগ ছড়িয়ে পড়ার আশংকা থেকে রেহাই পাবেন।

 

চিরুনি ও চুলের সামগ্রী
চিরুনি, হেয়ার ব্যান্ড, ক্লিপ এসবের মাধ্যমে মাথার উকুন ও খুসকি একজনের মাথা থেকে আরেকজনের মাথায় ছড়িয়ে পড়ে। তাই অন্য কারও চিরুনি বা চুলের সামগ্রী ব্যবহার করা উচিত না।

 

হেডফোন
অফিসে বা বন্ধুরা এক সাথে হলে অনেক সময়ই আমরা একজন আরেক জনের হেডফোন কানে দেই গান বা কোনো কিছু শুনতে। এটা ক্ষতিকর। কারণ প্রত্যেকের কানে বিশেষ কিছু ব্যাকটেরিয়া বসবাস করে। এতে করে একজনের কানের ব্যাকটেরিয়া আরেকজনের কানে গিয়ে ইনফেকশন হতে পারে।

 

ডিওডোরেন্ট রোল অন
যেসব ডিওডোরেন্ট রোল অন একজন বগলের নিচে বা শরীরে ব্যবহার করে, সেগুলো আরেকজন ব্যবহার করা অস্বাস্থ্যকর। কারণ এতে একজনের শরীরের ব্যাকটেরিয়া অন্যজনের শরীরে চলে যাওয়ার আশংকা থাকে।

 

নেইল ফাইলার
অন্যের ব্যবহার করা নেইল ফাইলারে (বিশেষ করে পার্লারে যেগুলো ব্যহার করা হয়) লুকিয়ে থাকতে পারে ছত্রাক, ফাঙ্গাস বা নানা রকম জীবাণু। এ সব জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়া কিন্তু খুব সহজেই আপনার নখেও ছড়িয়ে যেতে পারে। তাই অন্যের ব্যবহৃত এটি ব্যবহার করবেন না।

 

অন্যের ব্যবহৃত সানগ্লাস বা চশমা
অন্যের সানগ্লাস বা চশমা ব্যবহার করা উচিত না। কারণ ফ্রেমের মধ্যে লুকিয়ে থাকে ‘অঞ্জনির’ মতো নানা অসুখের জীবাণু, যা অল্পতেই ছড়িয়ে যেতে পারে আপনার চোখে।

 

স্লিপার
গ্রামের বাড়ি থেকে বা অনেক দূর থেকে আপনার বাসায় কোনও অতিথি বেড়াতে আসলে তার সঙ্গে স্লিপার নিয়ে এসেছেন কি না, সেটা দেখাও জরুরি। বিশেষ করে বাথরুমে আলাদা স্লিপার থাকা চাই তার জন্য। কারণ স্লিপারের মাধ্যমে তার পায়ের বিভিন্ন ফাঙ্গাস আপনার পায়েও চলে আসতে পারে। তাই তাকে বাথরুমের জন্য এক জোড়া নতুন স্লিপার কিনে দিন।

 

লিপ গ্লস বা লিপস্টিক
মেয়েরা সাধারণত এক বান্ধবী আরেক বান্ধবীর লিপ গ্লস বা লিপস্টিক ব্যবহার করতে ভালোবাসে। এটা খুব বিপজ্জনক। কারণ এতে করে হার্পিসের মতো ভাইরাস জনিত চর্মরোগ একজনের কাছ থেকে আরেকজনের মাঝে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

 

কসমেটিক্স
আইশ্যাডো, কাজল, ফেস পাউডারের মতো অন্য সব কসমেটিক্সও একে অপরেরটা ব্যবহার করা একেবারে অনুচিত। যদি বিয়ে বা কোনও অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে বিউটি সেলুনে যান, তাহলে খেয়াল রাখুন তারা সঠিক স্বাস্থ্যসম্মত প্রডাক্ট ব্যবহার করছে তো? কারণ আপনি জানেন না, আরেকজন কোন চর্মরোগ বয়ে বেড়াচ্ছে।

 

স্কিনকেয়ার
স্পঞ্জ, ব্রাশ, ম্যাসেজ রোলারের মতো স্কিনকেয়ার উপকরণ ব্যবহার করার ক্ষেত্রেও সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। অন্যের স্কিনকেয়ার উপকরণ ব্যবহার করবেন না। এতে করে আপনিও ব্যাকটেরিয়া আক্রান্ত হতে পারেন।

Top