আপডেটঃ
সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে – নোমান হোসেনজনবল সংকট ফুলছড়ি রেন্জ বেপরোয়া বনদস্যুরাখুটাখালীর পীর হাফেজ মাওলানা আবদুল হাই হুজুর আর নেইরামুর অবকাশ কমিউনিটি সেন্টারে ইউএনও’র নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের  অভিযান ॥ মাদক ও জুয়ার সামগ্রীসহ আটক ৪মোমেন হওয়ার জন্য পরিপূর্ণ ইসলামে প্রবেশ করুনডুলাহাজারা ইসলাম প্রচার ইসলামী তরুণ সংঘের নতুন কমিটি গঠিতনাইক্ষ্যংছড়িতে ৪ জন অপহরনঃ মুক্তিপন দাবীমহেশখালীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যানিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের ছয় দফা পূরণ করতে হবেনাইক্ষ্যংছড়ি দোছড়িতে চারজন কৃষক অপহরনচুনতির বিভিন্ন স্কুলে ৯৭ ব্যাচ এর উদ্যোগে দরিদ্র শিশুদের মাঝে পোশাক বিতরণঃকর্ণফুলীতে ওয়ারেন্টভূক্ত আসামী গ্রেফতার,ছাড়িয়ে নিতে জোর তদবিরঃশ্রীলঙ্কাকে গুঁড়িয়ে দিল টাইগাররাআন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান মির্জা ফখরুলেরবিজয়ের পথে বাংলাদেশ

এবার দাবি আদায়ে ধর্মঘটে ইবতেদায়ি শিক্ষকরা, প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

Teacher-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে ৯ দিনের অবস্থান ধর্মঘটের পরও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো আশ্বাস না পাওয়ায় আমরণ অনশন শুরু করেছেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা। মঙ্গলবার ( ৯ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা পর্যন্ত আশ্বাসের অপেক্ষা করে নিরুপায় হয়ে তারা আমরণ অনশনে যান। তাদের একমাত্র দাবি, ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকদের চাকরি জাতীয়করণ। বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, ১৯৯৪ সাল থেকে একই পরিপত্রে নিবন্ধিত বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকদের বেতন ৫০০ টাকা করা হয়। পরে ধাপে ধাপে বেতন বাড়তে থাকে তাদের। ২০১৩ সালে ৯ জানুয়ারি মহাজোট সরকার ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে।

শিক্ষকরা বলছেন, ইবতেদায়ি মাদ্রাসার সব কার্যক্রম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো হলেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বেতন-ভাতা পেলেও ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা তেমন কিছুই পান না। এই দুর্মূল্যের বাজারে ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা অমানবিকতার শিকার বলে দাবি করেন তারা। এরই পরিপ্রেক্ষিতে দীর্ঘদিন ধরে ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে আসছেন। এই দাবিতে গত ১০ নভেম্বর প্রেসক্লাবে মানববন্ধন করে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন তারা। এসময় ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে জাতীয়করণের আল্টিমেটাম দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

ওই আল্টিমেটামে কাজ না হলে ১ জানুয়ারি থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে আসছেন শিক্ষকরা। এর মধ্যে গতকাল সোমবার (৮ জানুয়ারি) তারা জানান, এদিনের মধ্যে দাবি আদায় না হলে মঙ্গলবার (০৯ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে আমরণ অনশন শুরু করবেন তারা। সেই ঘোষণা অনুযায়ী এবার আমরণ অনশন শুরু করলেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা।

শিক্ষকরা বলছেন, সরকার থেকে বেতন-ভাতা না পাওয়ায় তাদের মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে। এজন্য তারা দাবি করছেন রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে যেভাবে সরকারি করা হয়েছে, তাদেরও সেভাবে জাতীয়করণ করতে হবে।

এর আগে, গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বেতন-ভাতায় বৈষম্য নিরসনের দাবিতে আমরণ অনশন করে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোট। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে ২৫ ডিসেম্বর তারা অনশন কর্মসূচি শেষ করেন। পরে এমপিওভুক্তির দাবিতে সদ্যবিদায়ী বছরের ৩১ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আমরণ অনশন শুরু করেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসে ৫ জানুয়ারি অনশন ভাঙেন তারা।

Top