আপডেটঃ
সব সদস্য রাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করলে শান্তি নিশ্চিত হয় : স্পিকারনির্বাচন কবে, জানতে চাইলেন মার্কিন কূটনীতিকসভাপতি কমল এমপি, সাধারণ সম্পাদক হুদা বঙ্গবন্ধু পরিষদ কক্সবাজার জেলা কমিটি অনুমোদনযশোরে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহতহিলিতে জাতীয় ইদুঁর নিধন অভিযানের উদ্বোধনসৌদি কনস্যুলেট খাসোগিকে খুঁজবেন তুর্কি তদন্তকারীরালালন শাহের ১২৮ তম তিরোধান দিবসপর্যটক ও পূণ্যার্থীদের দুর্ভোগ… রামু চাবাগান- উত্তর মিঠাছড়ি সড়কে অসংখ্য গর্ত ॥ সংস্কার জরুরীচট্টগ্রামে ঝুঁকিপূর্ণ ১৩টি পাহাড়ে অবৈধ বসবাসকারীকে সরানো যাচ্ছেনাকর্ণফুলীতে চলছেনা গাড়ি: আরাকান মহাসড়কে ধর্মঘটফেসবুকে নায়িকা সানাই এর ২৭৮টি ভুয়া অ্যাকাউন্ট,থানায় জিডিসেন্টমার্টিনে রাত্রিকালীন নিষেধাজ্ঞা: পর্যটন খাতে নেতিবাচক প্রভাবের আশঙ্কাআশা ইউনিভার্সিটিতে সুচিন্তা’র জঙ্গিবাদবিরোধী সেমিনারশাহপরীরদ্বীপে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৪ পরিবার পেল নগদ টাকাসহ ৩০ কেজি করে চালবেনাপোল কাস্টমসে ১কেজি ৭শ গুড়ো সোনা সহ আটক ১

গর্ভবতী নারীরা যে ভুলগুলো করেন

pregnant-woman.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্স: গর্ভবতী প্রায় সব নারীই কয়েকটি সাধারণ ভুল করেন। এ ভুলগুলো এড়িয়ে চলতে পারলে স্বাস্থ্যকর গর্ভাবস্থা ধরে রাখা সম্ভব।

জেনে নিন তেমনই কয়েকটি ভুল যা গর্ভবতী নারীদের হয়ে থাকে।

১. গর্ভাবস্থায় বাড়তি যত্ন প্রয়োজন হয়। কোনো কোনো গর্ভবতী নারী গর্ভাবস্থাকে অসুস্থতা ধরে নিয়ে শুয়ে-বসে থাকেন। এটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। গর্ভাবস্থায়ও শরীর সচল রাখার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। এ কারণে স্বল্পমাত্রায় শারীরিক কার্যক্রম যেমন চালাতে হবে, একইসঙ্গে স্বাস্থ্যকর খাবারও খেতে হবে। এছাড়া কিছু খাবার ও ওষুধপত্রে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

২. গর্ভাবস্থায় প্রয়োজনের তুলনায় কম খাবার খান এমন নারীর সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। অনেকে আবার প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাবারও খান।

দুটোই গর্ভাবস্থায় ক্ষতিকর প্রভাব রাখে। অনেক নারীর ওজন মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যায়। এ কারণে নির্দিষ্ট মাত্রা অনুযায়ী খাবার খাওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

৩. গর্ভাবস্থায় সুস্থ থাকার জন্য প্রয়োজনীয় টিকা নেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় টিকা নিতে দেরি করা যাবে না। এটি সুস্থ সন্তান জন্মদানের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

৪. সুস্থ গর্ভধারণের জন্য কিছু ব্যায়াম রয়েছে। এগুলো পেটের মাংসপেশিকে স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে এবং সন্তান ধারণে উপযোগী পরিবেশ তৈরি করে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে গর্ভাবস্থায় উপযোগী ব্যায়াম করতে হবে।

৫. অনেক গর্ভবর্ত নারী যেমন সঠিক মাত্রায় ভিটামিন ও সাপ্লিমেন্ট খেতে চান না তেমন অনেক নারী আবার অতিরিক্ত ভিটামিন ও সাপ্লিমেন্ট সেবন করেন। উভয় বিষয়ই ক্ষতিকর। এ কারণে চিকিৎসকের পরামর্শমতো সঠিক মাত্রায় ভিটামিন ও সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করা উচিত। মনে রাখতে হবে, বাড়তি ডোজ যেমন ক্ষতিকর হতে পারে তেমন প্রয়োজনের তুলনায় কম ডোজও ক্ষতিকর হতে পারে।

৬. জিকা ভাইরাসে বর্তমানে সারা বিশ্বের বহু নারী আক্রান্ত হচ্ছেন। গর্ভবতী নারী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে শিশুর মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তাই সর্বদা সতর্ক থাকা উচিত যেন মশা না কামড়ায়। এ কারণে গর্ভাবস্থায় ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলে ভ্রমণেও সতর্ক থাকা উচিত।

Top