আপডেটঃ
যে দানে চরম শত্রু থেকে বন্ধু হলেন প্রিয়নবিআসছে শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ!ঈদে সাত পর্বের নাটকে ঊর্মিলাবাংলাদেশের যে কোনো সংকটে পাশে থাকবে ভারতহৃদয় জেতা ক্রোয়েশিয়া আজ ট্রফিও জিতুক!কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বহুতল অফিস ভবনের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধনচট্টগ্রাম পানির ট্যাংক থেকে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধারআওয়ামীলীগের প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত, ৮৫টি সংসদীয় আসনে আসছে নতুন মুখবহিষ্কৃত এএসআই ইয়াবা সহ ডিবির হাতে গ্রেফতার:চট্টগ্রাম শাহ আমানত মার্কেটে আগুনক্ষমতা চিরস্থায়ী করার পাঁয়তারা করছে সরকার: ফখরুলভিসির বাসভবনে হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে: প্রধানমন্ত্রীকার্ডের লেনদেনে আসছে ‘এনএফসি’ প্রযুক্তিফাইনালে ‘ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রস্তুত ক্রোয়েশিয়াগ্রামীণ গল্পে প্রসূন

শিবিরে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ২ লাখ রোহিঙ্গা শিশু

Rohinga-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্স: মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর চলমান নির্মূল অভিযানের কারণে পালিয়ে আসা সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের মধ্যে দুই লক্ষাধিক শিশু স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। জাতিসংঘের শিশু অধিকার সংস্থা ইউনিসেফ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এই কথা জানায়। সংস্থার বাংলাদেশ শিশু সুরক্ষা ইউনিটেরে প্রধান জঁ লিবির ওই বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশে যেভাবে রোহিঙ্গাদের ঢল দেখা দিয়েছে তা কল্পনাতীত।

ইউনিসেফের হিসেবে গত ৪ সেপ্টেম্বর থেকে মাত্র ৬ দিনেই প্রায় ২ লাখ ২০ হাজার মানুষ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। সংস্থার আশঙ্কা শীঘ্রই এ ঢল কমবে না।

ইউনিসেফ জানায়, এমন মানবিক বিপর্যয়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে শিশুরা। প্রাথমিকভাবে দেখা গেছে, মিয়ানমার থেকে সীমান্ত পেরিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে ৬০ ভাগই শিশু।

মিয়ানমার রোহিঙ্গা নির্মূল অভিযানের কারণে গত ২৫ আগস্ট থেকে এই পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ ৩০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে বলেও বিবৃতি জানায় সংস্থাটি।

ইউনিসেফ আরও জানায়, পালিয়ে আসা এসব শিশুরা কয়েক দিন ধরে নির্ঘুম অবস্থায় কাটিয়েছে। তারা ক্ষুধার্ত ও দুর্বল হয়ে পড়েছে। বিপদসংকুল দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে গিয়ে অনেক শিশু অসুস্থ হয়ে পড়েছে। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত এসব শিশুদের জরুরি ভিত্তিতে স্বাস্থ্য সেবা প্রয়োজন।

এছাড়া পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয় শিবির তৈরি হলেও সেখানে নিরাপদ পানি এবং পয়:নিষ্কাশন সুবিধা দরকার রয়েছে বলেও মনে করে ইউনিসেফ।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সবচেয়ে বড় আশঙ্কা সেসব শিশুদের নিয়ে যারা মা-বাবা বা অভিভাবকের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সংস্থা সরেজমিনে পরিদর্শনের পর এখন পর্যন্ত ১ হাজার ১২৮ শিশু পেয়েছে, যারা মা-বাবা থেকে বিচ্ছিন্ন বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

সংস্থার আশঙ্কা, সামনের দিনগুলোতে পালিয়ে আসা বিচ্ছিন্ন শিশুদের এই সংখ্যা আরও বাড়বে।

Top