আপডেটঃ
বনপা’র উদ্যোগে ‘মহাকাশে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা ও ইফতার মাহফিল ২৬ মেনাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে পাহাড় ধ্বসে ৫ জনের মৃত্যু : ১ জন কে জীবিত উদ্ধারঅভিভাবকহীন মারুফা কর্ণফুলী থানায়রোহিঙ্গা শিশুদের সাথে সময় কাটালেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কাতাসফিয়া হত্যায় ৩য় পক্ষের ইন্দন খতিয়ে দেখার দাবি বাবারকক্সবাজারে প্রিয়াঙ্কা, বিকেলে যাবেন রোহিঙ্গা ক্যাম্পেচৌফলদন্ডীর সন্তান হিসাবে ইয়াবা নির্মুলে দু একটা কথা আমাকে বলতে হবেব্যবসায়ী সেলিমের উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধননকল ও ভেজাল প্রতিরোধে ঈদগাও বাজারে অভিযানরোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে বাংলাদেশে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ানামাজ পড়ার সময় যদি পেছনের সারি থেকে বাচ্চাদের হাসির আওয়াজ না আসে, তাহলে পরবর্তী প্রজন্মের ব্যাপারে ভয় করুন”প্রধানমন্ত্রীর ‘নির্বাচিত ১০০ ভাষণ’ সব সরকারি দফতরে রাখার নির্দেশএমপিওভুক্ত শিক্ষকদের দলীয় রাজনীতি নিষিদ্ধ হচ্ছেঈদগড়ে পুলিশের অভিযানে গাঁজাসহ ১ ব্যবসায়ী আটকরামু ক্রসিং হাইওয়ে থানা পুলিশের পৃথক অভিযান ২৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক চার

ঝিনাইদহ র‌্যাব ৬ এর কমান্ডার মেজর মনিরের শান্তির বার্তা ফুরসন্দি ইউনিয়ন জনসাধারণের নিকট পৌঁছে দিলেন বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান

pic-3-1.jpg

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ

ঝিনাইদহের সদর উপজেলার ১৩ নং ফুরসন্দি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের ২ গ্রুপের মাঝে লাগাতার সংঘর্ষ লেগেই থাকে। তাদের এই সংঘর্ষ থামাতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন পর্যায়ের কর্মকর্তারা ও ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডঃ আব্দুল মালেক মিনা ও সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ সিকদারকে একাধিকবার থানায় ডেকে ইউনিয়নে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার কথা বললেও এই ইউনিয়নে সংঘর্ষ থামেনি। এই উভয় নেতা বলেন, জনসাধারণ নিজেরা গোলমাল করে আমাদের দ’ুজনের জনের নাম করেন। আমারা তাদের গোলমাল থামাতে পারছি না। গত ৩রা সেপ্টম্বের ঈদুল আজাহার পরের দিন রোজ রবিবার সকাল ৭ টায় এই ইউনিয়নের ধনঞ্জয়পুর, ফুরসন্দি, ল²ীপুর ও সমসপুর এই ৪ গ্রাম সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে এবং এই ঘটনায় উভয় পক্ষের প্রায় ৬০/৭০ জন লোক আহত হয়ে ঝিনাইদহ, মাগুরা ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের হাসপাতালে ভর্তি হয় ও এই ঘটনায় প্রায় ১০ টি বাড়ি ভাংচুর ও একটি বাড়ি লুটপাঠ হয়। এঘটনা ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নজির বিহীন ঘটনার জন্ম দেয়। যার কারনে একজন হার্ডঅ্যাটাক হয়ে মারা যায়। ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ উভয় নেতাকে থানায় ডেকে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা বাজায় রাখার আহবান জানান।

 

পরবর্তিতে গত ৯ তারিখে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক ও সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ সিকদার সহ ঐ ইউনিয়নের উভয় পক্ষের ৫ জন করে গণ্যমান্য আর ১০ জনকে ডেকে ঝিনাইদহ র‌্যাব ৬ এর কমান্ডার মেজর মনির একটি শান্তি কমিটি গঠন করে দেন। এই শান্তি কমিটি গঠন কালে মেজর মনির বলেন, আপনারা আপনাদের এলাকায় আমার এই বার্তা পৌঁছে দেবেন বিগত দিনে যা ঘটেছে সেগুলো তারা ভুলে যাবে। এখন থেকে নতুন করে কেউ কোন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়বে না। সকলে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা বাজায় রেখে চলবে। যারা শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্ট করবে তাদের ব্যাপারে এই কমিটি র‌্যাবের নিকট রিপোর্ট পেষ করবে। তারপর এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে র‌্যাব ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

 

এলক্ষ্যে রবিবার বিকাল ৪ টা থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডঃ আব্দুল মালেক মিনা ও সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ সিকদার একসঙ্গে মিলিত হয়ে ফুরসন্দি ইউনিয়নের ধনঞ্জয়পুর, কুশবাড়িয়া, টিকারি বাজারের সাধারন মানুষের নিকট র‌্যাব কমান্ডার মেজর মনিরের শান্তির বার্তা পৌঁছে দেন। এই সময়ে বিভিন্ন বাজারের পথসভায় বক্তব্য রাখেন, বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডঃ আব্দুল মালেক মিনা, সাবেক চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শহীদ সিকদার, নারিকেলবাড়িয়া ক্যাম্পের টু আইসি ঈদবার, ইউনিয়ন শান্তি কমিটির সদস্য টিকারি গ্রামের আলী কদর মাস্টার, তাহাছাড়া উপস্থিত ছিল শান্তি কমিটির সদস্য দিঘির পাড় গ্রামের আলিম উদ্দিন, মিয়াকুন্ডু গ্রামের শেখ মাছুদুর রহমান, ধনঞ্জয় পুর গ্রামের রউফ কাজী, ওহাব মোলা, দুধু মোল্লা, ল²ীপুর গ্রামের হায়দার মন্ডল, শমসপুর গ্রামের মকবুল হোসেন, মাড়ন্দি গ্রামের সিদ্দিক মোল্লা ও সনাতনপুর গ্রামের রাজা বিশ্বাস। তাছাড়া এলাকার ইউপি সদস্যরা সহ বিপুল সংখ্যা সাধারন মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

পথসভায় উভয় নেতা জনসাধারণের উদ্দেশ্যে বলেন আমারা এলাকায় শান্তি চাই, গোলমাল চাই না। গোলমালের কারনে ঝিনাইদহের মানুষ ফুরসন্দি ইউনিয়নের মানুষ কে ঘৃণা করে। আমারা মুখ দেখাতে পারি না। আগে যাই হোক না কেন আজ থেকে আপনারা কোন গোলমাল করবেন না। যদি কেউ কার কোন সমস্যা হয় তাহলে সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ সিকদার ও আলী কদর মাস্টার সহ শান্তি কমিটি তার সমাধান দেবে। তাছাড়া কেউ যদি কোন প্রকার গোলমাল সৃষ্টি করে তার দায় দায়িত্ব তাকেই বহন করতে হবে। তার ব্যাপারে প্রশাসনের নিকট কেউ কোন প্রকার সুপারিস করবে না। ইউনিয়নে যারা হামলা, মামলার ভঁয়ে বাড়ি ছাড়া আছে তাদের নির্ভয়ে বাড়ি যেতে বলেন, তাদের কে যদি কেউ কোন বাধা দেয় তাহলে প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়ে দেন।

Top