‘বিএনপি প্রধান বিচারপতিকে অপসারণের গুজব ছড়াচ্ছে’

obaidul.jpg

ওয়ান নিউজঃ  আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে অপসারণ করার চিন্তা-ভাবনা নেই। এটা স্রেফ বিএনপির গুঞ্জন-গুজব। বিএনপিই এই গুজব-গুঞ্জন ছড়াচ্ছে।’

বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা স্রেফ গুজব। আর এই গুজবের প্রডিউসার হচ্ছে বিএনপি। ডিরেক্টর হচ্ছে বিএনপি। ডিস্ট্রিবিউটর হচ্ছে বিএনপি। এই তিনটি বিষয়ের ম্যানুফ্যাকচারার হচ্ছে বিএনপি।’

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর আওয়ামী লীগ দিশেহারা, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আসলে কি তাই? ক্ষমতার হারানোর পর ময়ূর সিংহাসন ফিরে পাওয়ার বিএনপির সেই রঙিন স্বপ্ন ভেঙে গেছে বলে তারা এখন দিশেহারা-বেপরোয়া হয়ে আবোলতাবোল বলছে। গুজবের পর গুজব পল্লবিত করছে।’

বিএনপিকে বাংলাদেশ নালিশ পার্টি অভিহিত করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘তাদের আর এখন কিছু নেই। শুধু কর্মসূচি আছে নালিশের। দেশে-বিদেশে নালিশ আর কান্নাকাটি।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রায়ের পর্যবেক্ষণে তাদের যে অবৈধ ক্ষমতা দখলকারী বলা হয়েছে, সেটা নিয়ে তাদের কোনো কথা নেই। এই রায়ের পর্যবেক্ষণে যে যে অংশে আওয়ামী লীগকে বিপদে ফেলা যায়, কোনঠাসা করা যায়, এই ধরনের কথা নিয়ে। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেক্ষণকে তারা ইস্যু হিসেবে বেছে নিয়ে ভেবেছিল, এই ইস্যু থেকে ফায়দা তুলতে পারবে। অনেক চেষ্টা করল। মওদুদ আহমদ সাহেবের বুদ্ধিতে মির্জা ফখরুল এমন একটা ভাব দেখালেন, যেন ক্ষমতার সিংহদুয়ারে বিএনপি এসে গেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বিএনপি নয়। আমরা ষড়যন্ত্র করি না। আমরা চক্রান্ত করি না। আমরা চক্রান্তের শিকার হই। আমরা ১৫ আগস্ট, ২১ আগস্ট চক্রান্তের শিকার হয়েছি।’

আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির আহ্বায়ক আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, রামেন্দু মজুমদার, পীযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়, পান্না কায়সার প্রমুখ।

সভা পরিচালনা করেন সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির সদস্য সচিব ও আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের এ বি এম রিয়াজুল কবির কাওছার, আমিরুল আলম মিলন প্রমুখ।

Top